রাজশাহী-৩ আসনে আ.লীগের দলীয় মনোনয়ন চাইলেন আসাদ


নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজশাহী-৩ (পবা-মোহনপুর) আসনে আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ন চাইলেন জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ।
সোমবার দুপুরে পবা  ও মোহনপুরের বিপুল সংখ্যক নেতা কর্মীকে সাথে নিয়ে বঙ্গবন্ধু এভিনিউ এ দলীয় কার্যালয়ে যান আসাদুজ্জামান। সেখানে আসাদের পক্ষে রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ফারুক হোসেন ডাবলু ও শরিফুল ইসলাম, যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক মুস্তাক আহমেদ, মোহনপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতা এনামুল হক, জেলা যুবলীগের সাবেক প্রচার সম্পাদক রফিকুজ্জামান রফিক দলীয় মনোনয়ন ফরম জমা দেন।
দলীয় মনোনয়ন চাওয়ার বিষয়ে যোগায়েগ করা হলে আসাদুজ্জামান আসাদ বলেন, আওয়ামী পরিবারে আমার জন্ম। আওয়ামী পরিবারেই বেড়ে ওঠা। ছাত্রলীগ, যুবলীগে নেতৃত্ব দেয়ার পর আমি জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছি।
দলের ভালো, খারাপ সব সময়ই বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বুকে ধারণ করে তৃনমূলের কর্মীদের সাথে নিয়ে মাঠে থেকেছি। আমার স্বার্থকতা হলো আমি আওয়ামীগে অগনিত কর্মী বানিয়ছি, অসংখ্য নেতা বানিয়েছি। আমার হাতে গড়া বহু কর্মী এখন জনপ্রতিনিধি। এগুলো আমার ভালো লাগার জায়গা। আমি সবসময়ই কর্মীদের জন্য কাজ করি। এই কাজটিই আরো জোরালোভাবে করা, দলের নেতা কর্মীদের সুখ দু:খে জোরালো ভূমিকা রাখার লক্ষ্য নিয়ে আমি আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী হতে চাই। অনেক বছর আগে থেকেই আমি পবা-মোহনপুর এলাকার মানুষের পাশে আছি। এ এলাকার দলীয় নেতা কর্মীদের সুখ দু:খে পাশে থাকার চেষ্টা করেছি। আমার এতদিনের পথ চলায় উপলব্ধি করতে পেরেছি যে, এই এলাকার মানুষের হৃদয়ে আমার একটা জায়গা রয়েছে। সেখানকার অসংখ্য কর্মী আমাকে মন প্রাণ দিয়ে ভালোবাসে। তারা ঐ আসনে আমাকে এমপি হিসেবে দেখতে চায়।
এই উপলব্ধি থেকে আমি রাজশাহী-৩ আসনে দলীয় মনোনয়ন চেয়েছি। আমি প্রত্যাশা করি জননেত্রী শেখ হাসিনা আপার স্নেহ নিয়ে এই আসনে দলীয় সমর্থন পাবো। এবং এলাকার মানুষের ভলোবাসা নিয়ে পবা-মোহনপুরে নৌকার বিজয় নিশ্চিত করতে পারবো ইনশাল্লাহ।
আসাদের মনোনয়ন ফরম জমা দেয়ার সময় দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে মোহনপুরের নেতা সুলতান মাস্টার, প্রভাষক সাইদুর রহমান, আজার আলী, আফছার আলী, শামসুল হক, বড়গাছি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফারুক রহমান মাসুম, পারিলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল বারি ভুলু, হরিপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সাইদুর রহমান বাদল, সাধারণ সম্পাদক পান্না, বড়গ্রাম ইউনিয়ন আওয়ামী নেতা হেলাল উদ্দিন, শাহাদাত হোসেন পিন্টু, দামকুড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ,  নেতা বাবু হোসেন, হলদিপাড়া ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি আব্দুর রফিক, নওহাটা পৌর নেতা বাবুল হোসেন, বাবু রহমান, সেতাবুর রহমান, মোহনপুর উপজেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি মজিবর মাস্টার ও সাধারণ সম্পাদক মিলন মাস্টার, নওহাটা পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি তানভীর আলী, মোহনপুর ছাত্রলীগের নেতা, তাপস, রিপন শেখ, হাফিজুর রহমান হাফিজ, কামাল হোসেনসহ পবা  ও মোহনপুরের সকল স্তরের আওয়ামী লীগ যুবলীগ ও ছাত্রলীগ নেতা কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। #

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.