ব্রেকিং নিউজ

আজ- বৃহস্পতিবার, ৩০শে কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৪ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং

শিরোনাম

   র‌্যাব-৫ এর অভিযানে ১৫৪ কেজি গাঁজা ও কাভার্ট ভ্যানসহ ১ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার       চাঁপাইনবাবগঞ্জ সীমান্তে ৫৩ বিজিবি’র হেরোইন উদ্ধার       সকল প্রকারের রেনিটিডিন ঔষধ বিক্রি স্থগিত       র‌্যাবের অভিযানে চাঁপাইনবাবগঞ্জে ফেন্সিডিলসহ আটক ১       চাঁপাইনবাবগঞ্জে মডেল স্কুলের পিএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধণা       সংখ্যালঘু রোহিঙ্গাদের উপর নির্যাতনের দায়ে সু চি’র বিরুদ্ধে আর্জেন্টিনার আদালতে মামলা       শিশু শিক্ষা নিকেতনে পিএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধণা       ঈদ-ই-মিলাদুন্নবী (স.) উপলক্ষে চাঁপাইনবাবগঞ্জে ইফা’র আলোচনা ও পুরস্কার বিতরন       লাদেন পাকিস্তানের হিরো ছিলেন : মোশাররফ       হবিগঞ্জের চুনারুঘাট থানায় তথ্য সংগ্রহে পুলিশের বাঁধা, ছেলের দায় পিতার ঘাড়ে        কুয়েতের প্রধানমন্ত্রী পদত্যাগ করলো       লালমনিরহাটে বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবস পালিত       উজিরপুরে বীর মুক্তিযোদ্ধার রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন সম্পন্ন       উজিরপুরে সিরাজুল ইসলামকে শোলক ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সম্পাদক হিসেবে দেখতে চায় এলাকাবাসী       পাবনা ডিস্ট্রিক্ট কিন্ডারগার্টেন ঔনার’স এ্যাসোসিয়েশন’র আয়োজিত বৃত্তি পরীক্ষায় কৃতি শিক্ষার্থীদের মাঝে বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠিত       “মায়ের জন্য শিশু দুটির কান্না যেন থামছেই না”     

মহানবী (সা.) যে সব সুগন্ধি পছন্দ করতেন মেশক, চন্দন, জাফরান, আম্বর

 

বিটিসি নিউজ ডেস্ক: মহানবী (সা.) যে সুগন্ধি পছন্দ করতেন , তার মধ্যে অন্যতম মেশক। হজরত আবু সাঈদ খুদরি (রা.) থেকে বর্ণিত, মেশক প্রসঙ্গে রাসুল (সা.)-কে প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, উত্তম সুগন্ধি হলো মেশক। (তিরমিজি, হাদিস : ৯৯২)

মেশককে আমাদের দেশে কস্তুরিও বলে। এটি অত্যন্ত মূল্যবান সুগন্ধি। পুরুষ হরিণের পেটে অবস্থিত সুগন্ধি গ্রন্থি নিঃসৃত সুগন্ধির নাম। মিলন ঋতুতে পুরুষ হরিণের পেটের কাছের কস্তুরি গ্রন্থি থেকে সুগন্ধ বের হয়, যা মেয়ে হরিণকে আকৃষ্ট করে। ঋতুর শেষে তা হরিণের দেহ থেকে খসে পড়ে যায়। সেটি সংগ্রহ করে রোদে শুকিয়ে কস্তুরি তৈরি করা হয়। একটি পূর্ণাঙ্গ কস্তুরির ওজন ৬০ থেকে ৬৫ গ্রাম হয়।

এই সুগন্ধি এতটাই শক্তিশালী যে কথিত আছে, কস্তুরির একতিল পরিমাণ কোনো বাড়িতে ফেললে বহু বছর সেখানে এর ঘ্রাণ থাকে। তিন হাজার ভাগ নির্গন্ধ পদার্থের সঙ্গে এর এক ভাগ মেশালে সব পদার্থই সুবাসিত হয় কস্তুরির ঘ্রাণে।

কখনো কখনো রাসুল (সা.) চন্দন ও জাফরানের সুগন্ধিও ব্যবহার করতেন। আল্লামা ইবনে আবদুল বার (রহ.) ‘তামহিদ’ নামক কিতাবে আবদুল্লাহ ইবনে ওমর (রা.)-এর একটি হাদিস বর্ণনা করেছেন। সেখানে বলা হয়েছে, ‘রাসুলুল্লাহ (সা.) জাফরানের সুগন্ধি ব্যবহার করেছেন।’

রাসুল (সা.) যে সুগন্ধিগুলো ব্যবহার করতেন, তার আরেকটি হলো আম্বর। হজরত আয়েশা (রা.)-কে জিজ্ঞেস করা হয়েছিল—রাসুলুল্লাহ (সা.) কী ধরনের সুগন্ধি ব্যবহার করতেন। জবাবে তিনি বলেছেন, ‘মেশক ও আম্বরের সুগন্ধি রাসুলুল্লাহ (সা.) ব্যবহার করতেন।’ (নাসায়ি শরিফ, হাদিস : ৫০২৭)

সমুদ্রে বিশেষ এক ধরনের মাছ আছে, যা থেকে মোমের মতো দ্রব্য পাওয়া যায়। সে জিনিস দিয়েই বানানো হয় মহামূল্যবান এই সুগন্ধি। এটি সাধারণত চীন, আমেরিকা, মাদাগাসকার, সোমালিয়া এবং আটলান্টিক মহাসাগরের তীরে ভাসমান অবস্থায় পাওয়া যায়। অনেকের ধারণা, সমুদ্রের সেই বিশেষ মাছ হলো নীল তিমি। এ বিষয়ে মহান আল্লাহ বেশি অবগত।

মুফতি মুহাম্মদ মর্তুজার লেখা । #

Comments are closed.