ব্রেকিং নিউজ

আজ- মঙ্গলবার, ৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৯শে নভেম্বর, ২০১৯ ইং

শিরোনাম

  শিক্ষার্থীরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে ফু দিলে সাইক্লোন হয়ে উড়ে যাবে সন্ত্রাসীরা!       গ্রাম আদালত সক্রিয়করণের মাধ্যমে এলাকায় ন্যায় ও শান্তি স্থাপন করতে হবে – উপসচিব মোহাম্মদ শওকত ওসামান       রংপুর সিটি কর্পোরেশনের ‘১৭ নং ওয়ার্ড তামাকমুক্ত ঘোষণা’ শীর্ষক ক্যাম্পেইন       জলঢাকায় কৃষি প্রণোদনা কর্মসুচি’র আওতায় ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষকদের মাঝে বীজ ও সার বিতরন       পুলিশের পৃথক ৩টি অভিযানে তানোরে ওয়ারেন্ট ভুক্ত আসামী, মাদক ব্যাবসায়ী ও মাদকসেবীসহ আটক ৩       লিবিয়ায় ত্রিপোলিতে বিমান হামলায় ৫ বাংলাদেশি নিহত       দরিদ্র ও অসহায় বিচার প্রার্থীগণ কে সহায়তার লক্ষ্যে কোর্ট স্টাফ ও জিআরওদের মতবিনিময়       প্রধানমন্ত্রী দেশে ফিরছেন কাল       পলাশবাড়ীতে প্রাথমিক ও এবতেদায়ী পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শন করেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সহকারী সচিব        ব্যালট ভোটে নন্দুয়ার ইউনিয়ন আ’লীগের  কাউন্সিল অনুুুুষ্ঠিত       উজিরপুরে শোলক ভিক্টোরিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচনকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা পুনঃ তফসিলের দাবী       সিয়াচেন প্রদেশে ভারতীয় ৮ সেনা নিখোঁজ       উজিরপুরে অজ্ঞাত নবজাতকের লাশ উদ্ধার       উজিরপুরের সাতলায় আ.লীগের পকেট কমিটি গঠনের পায়তারার প্রতিবাদে বিক্ষোভ, সভা পন্ড       রাঙ্গামাটি’র রাজস্থলীতে জনসংহতি সমিতির দু’পক্ষের গোলাগুলিতে নিহত ৩       লালমনিরহাটে বিএনপির বিক্ষোভ    

বাংলাদেশ সীমান্তে ড্রোন মোতায়েন করল ভারত

বিটিসি নিউজ ডেস্ক:  ইসরায়েল থেকে আমদানি করা অসংখ্য ড্রোন বাংলাদেশ সীমান্তে মোতায়েন করেছে ভারত। এসব ড্রোন দিয়ে সীমান্তে নজরদারি জোরদার করার দায়িত্ব পেয়েছে দেশটির সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ। ড্রোনগুলো মোতায়েন করা হয়েছে মেঘালয় থেকে পশ্চিমবঙ্গের কোচবিহার পর্যন্ত দীর্ঘ সীমান্ত এলাকায়। খবর দ্য হিন্দু’র

ভারতীয় গণ মাধ্যম দ্য হিন্দু’র আজ সোমবার (৪ নভেম্বর) এক অনলাইন প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে, সীমান্তে সব ধরনের চোরাকারবার ও পাচার বন্ধে এমন কঠোর নজরদারির পদক্ষেপ নিয়েছে ভারত সরকার। তবে কতটি ড্রোন মোতায়েন করা হয়েছে তার সঠিক সংখ্যা সম্পর্কে কিছু জানায়নি বিএসএফ।

আসাম, মেঘালয়, মিজোরাম, ত্রিপুরা ও পশ্চিমবঙ্গের সঙ্গে বাংলাদেশের সীমান্ত সংযোগ রয়েছে ৪ হাজার ৯৬ কিলোমিটারের। আসামের পশ্চিমাঞ্চলে ধুবরি সেক্টরের ৬১ কিলোমাটির দীর্ঘ সীমান্তে আকাশযান (ড্রোন) ছাড়াও মাটির নিচে পুঁতে রাখা যন্ত্র দিয়েও নজরদারি শুরু করেছে বিএসএফ।

ইসরায়েল থেকে সম্প্রতি এসব ড্রোন আমদানি করেছে ভারত। বিরতিহীনভাবে দীর্ঘ সময় এগুলো চালু থাকে। যার প্রত্যেকটির দাম ভারতীয় মুদ্রায় ৩৭ লাখ রুপি। ড্রোনগুলোতে ভিশন ক্যামেরা রয়েছে, যা দিয়ে দিনে কিংবা রাতে মাটির ২ কিলোমিটার উপর থেকে ছবি তোলা সম্ভব।

আসামের সঙ্গে বাংলাদেশের ২৬৩ কিলোমিটার দীর্ঘ সীমান্তের মধ্যে ১১৯ কিলোমিটারই নদীসংলগ্ন। রাজ্যটির পশ্চিম দিকে অবস্থিত ধুবরি সেক্টরের ৬১ কিলোমাটির এলাকা দিয়ে ব্রক্ষ্মপুত্র নদ বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে। ওই এলাকাটির সীমান্তে নজরদারি আরও বেশি জোরদার করা হয়েছে।

হিন্দু’র প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, বাংলাদেশের সঙ্গে সীমান্ত লাগোয়া আসামের ওই অঞ্চলটিতে নজরদারি করা সীমান্তরক্ষী বাহিনীর জন্য বেশ কঠিন হয়ে পড়ে। বিশেষ করে বর্ষা মৌসুমে পরিস্থিতি আরও জটিল রুপ ধারণ করে। ফলে ওই এলাকা দিয়ে অবৈধ পাচার ও চোরকারবার হয় বেশি।

বিএসএফের গোহাটির ইন্সপেক্টর জেনারেল পিযুশ মর্দিয়া বলেন, ‘মূলত সীমান্তের এলাকায় নজরদারি ব্যবস্থা দুর্বল সেসব এলাকা দিয়ে চোরাচালান বেশি হয়। সাধারণত এসব হয় রাতে। এসব ড্রোন মোতায়েন আমাদের নজরদারি সীমাবদ্ধতা দূর করবে।’

তিনি বলেন, ‘ড্রোনগুলো ১৫০ মিটার উঁচু থেকে প্রতিনিয়ত ছবি তুলে পাঠাবে। চোরকারবারিদের সনাক্ত করবে এসব ড্রোন। তবে বিএসএফ বলছে, নজরদারি জোরদারের চেয়েও এর পেছনে বড় পরিকল্পনা হলো, পাচারকারীদের কাছে এই বার্তা পাঠানো যে, তাদের ওপর সব সময় নজর রাখছে বিএসএফ।

ড্রোন ছাড়াও আসামের ধুবরি সেক্টরে মাটির নিচে থার্মাল-ইমেজার, স্বয়ংক্রিয় তাপমাত্রা পরিমাপক যন্ত্রও স্থাপন করেছে বিএসএফ। এসবের মাধ্যমে মানুষ, প্রাণী এমনকি অন্যান্য যেকোনো বস্তুর চলাফেরার ওপর নজরদারি করা যায়। #

Comments are closed.