ব্রেকিং নিউজ

আজ- শনিবার, ২৪শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৮ই আগস্ট, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম

  ফজিলাতুন্নেছা মুজিব ছিলেন বঙ্গবন্ধুর বিশ্বস্ত সহচর : প্রধানমন্ত্রী       কারিগরি শিক্ষায় ভর্তির হার ৫০ শতাংশে উন্নীত করা হবে : শিক্ষামন্ত্রী       সিংড়া উপজেলা আ:লীগের সাবেক সভাপতির মুত্যূ বার্ষিকীতে আলোচনা ও দোয়া       কোঝিকোড়ে অবতরণ’র সময় পিছলে গিয়ে দু’টুকরো হল বিমান, আহত বহু       হংকং-এর প্রধান নির্বাহীসহ ১১ চীনা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্র’র নিষেধাজ্ঞা       কেরালায় প্রবল বর্ষণে ভূমিধসে ১৩ জন’র মৃত্যু       মাহাথির’র নতুন রাজনৈতিক দল গঠন’র ঘোষণা       বঙ্গবন্ধুর আরো এক খুনিকে দেশে ফিরিয়ে বিচার করা হবে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী       শহীদ এ.এইচ.এম কামারুজ্জামানের কবর জিয়ারতে রাসিকের প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা       সান্তাহার রেলওয়ে পুলিশের ২০ দিনে ৬২ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার       মোড়েলগঞ্জে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্ত ৬ ব্যবসায়ীকে অনুদান প্রদান       ফুলবাড়ীতে পুকুরের পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু       রামেক হাসপাতালে পিসিআর মেশিনের ত্রুটির কারণে এক সপ্তাহ ধরে করোনার পরীক্ষা বন্ধ !       বীর মুক্তিযোদ্ধা সুবেদার সিরাজ উদ্দিনকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন       আমার মা       মানবিক পৌর মেয়র শাহনেওয়াজ আলী মোল্লা    

পলাশবাড়ীতে অবৈধভাবে ১১৪ টি গাছ কর্তন করেছেন বেতকাপা ইউপি চেয়ারম্যান ও তার সহযোগীরা

গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি: গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ী উপজেলার ৬ নং বেতকাপা ইউনিয়নের নান্দিশহর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে হালদার পাড়া পযন্ত রাস্তার ১১৪ টি ইউক্লেলিপটাশ গাছ কর্তন করেছে পারআমলা গাছী গ্রামের খাজা মিয়ার ছেলে তারেক মিয়া। বেতকাপা ইউপি চেয়ারম্যান ফজলুল করিম এ গাছ কর্তনের অনুমতি প্রদান করেন।
সরকারী রাজস্ব ফাকি দিয়ে এসব বড় বড় ইউক্লেলিপটাশ গাছ নাম মাত্র ৮০ হাজার টাকা  মূল্যেয় বিক্রি করেন তারা । মোটা টাকার চুক্তির বিনিময়ে উক্ত সমিতির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের সহযোগিতায় সরকারের রাজস্ব ও সমিতির সদস্যদের ফাঁকি দিতেই  গাছ কর্তনকারীর সঙ্গে লিয়াজো করে এসব গাছ কর্তন করছেন বলে এলাকাবাসীর অভিযোগ।
জানা যায়, উপজেলার বেতকাপা ইউনিয়নের নান্দিশহর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় হতে হালদার পাড়া পযন্ত রাস্তায় উক্ত সমিতির সদস্যরা  ১০/১২ বছর আগে ইউক্ল্যালিপটাশ গাছ রোপন করেন । গাছগুলো বর্তমানে বেশ বড় ও মোটা হয়ে বেরে উঠেছে।
উক্ত গাছগুলো চোখে ধরার মত হওয়ায় সমিতির কিছু লোভী ব্যক্তি গাছগুলো কর্তন করার জন্য উঠে পড়ে লেগে যায়।
এরই ধারাবাহিকতায় গত ১১ ইং ডিসেম্বর ২০১৯ তারিখের একটি কাগজ তৈরি করে দেন ৬নং বেতকাপা ইউপি চেয়ারম্যান ফজলুল করিম। সেখানে দ্বিতীয় দরদাতার কোন উল্লেখ নেই। কোন পত্রিকার গাছ কর্তনের টেন্ডার নোটিশ নেই।
ইউপি পরিষদের কোন নিলাম ডাকের সাইন বোর্ড কিংবা মাইকিং নেই। নেই উপজেলা ফরেস্টের কোন অনুমতির কাগজ পত্র। গাছ কর্তনের বিষয়ে জানেন না কমিটির সদস্য উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা।
শুধু মাত্র ইউনিয়ন পরিষদের একটি কাগজ দিয়ে কি ভাবে এতগুলো গাছ কর্তন করা যায় এ প্রশ্ন করেছেন অত্রালাকাবাসী।
এব্যাপারে সুষ্ঠ তদন্ত সাপেক্ষে দোষী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আইননুগ ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য জেলা -উপজেলা প্রশাসনের  জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন সচেতন এলাকাবাসী।
এবিষয়ে ৬ নং বেতকাপা ইউপি চেয়ারম্যান ফজলুল করিম বিটিসি নিউজ এর প্রতিবেদককে জানান, আপনাদের কি করার আছে করেন।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মেজবাউল হোসেন বিটিসি নিউজ এর প্রতিবেদককে জানান, ইউপি চেয়ারম্যানকে যথাযথ নিয়ম মেনে গাছ কর্তন করতে বলা হয়েছে।

সংবাদ প্রেরক বিটিসি নিউজ এর গাইবান্ধা প্রতিনিধি মোঃ শাহরিয়ার কবির আকন্দ। #

Comments are closed.