দামুড়হুদায় পর স্ত্রীকে ভাগিয়ে এনে মেসে রাখার অভিযোগ

দামুড়হুদা( চুয়াডাঙ্গা) প্রতিনিধি: দামুড়হুদার কার্পাসডাঙ্গা পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের লাইনম্যান কুষ্টিয়া কুমারখালী গট্টিয়ার জিহাদ ওরফে জীমের বিরুদ্ধে কুমারখালী কুষ্টিয়া থেকে পরস্ত্রীকে ভাগিয়ে এনে তার মেসে রেখে দেবার অভিযোগ উঠেছে।
একদিন পর মেয়ের সন্ধান পেয়ে (১২ সেপ্টেম্বর) মঙ্গলবার দুপুর ১ টার দিকে মেয়েটির পিতা ও তার স্বামী এসে তাকে আরামডাঙ্গার গ্রামের শিক্ষক ফারুকের ভাড়া দেওয়া ঘর পল্লী বিদ্যুতের লাইনম্যানদের মেস থেকে উদ্ধার করেছে।
জানা গেছে, কার্পাসডাঙ্গা পল্লী বিদ্যুতের লাইনম্যান জিহাদ ওরফে জীম দীর্ঘদিন ধরে কুমারখালির কুষ্টিয়ার এ গৃহবধূর সাথে অবৈধ সম্পর্কে লিপ্ত রয়েছে (মেয়েটির সম্মানের কথা চিন্তা করে নাম পরিচয় গোপন করা হলো) গত পরশু সোমবার ঐ গৃহবধূকে ফুঁসলিয়ে নিয়ে আসে জিহাদ ওরফে জিম।পরবর্তীতে তাদের মেসে নিয়ে রাখে।
রাতভর মেসে থেকে গতকাল মঙ্গলবার বিকালে বিয়ের প্রস্তুতি নিতে থাকে জিহাদ ওরফে জীম। মেয়ের বাবা ও তার স্বামী সন্ধান পেয়ে (১২ সেপ্টেম্বর) মঙ্গলবার দুপুর ১ টার দিকে জিহাদের মেসে এসে মেয়েকে পেয়ে যায়।
এসময় জিহাদ সহ আরাম ডাঙ্গার কালাম ও কয়েক জনের উপস্থিতিতে মেয়েকে জিহাদের হাত থেকে উদ্ধার করে নিয়ে যায় তার পিতা ও তার স্বামী। এ ঘটনায় সাংবাদিকরা ঘটনাস্থলে পৌঁছালে সাংবাদিকদের তথ্য নিতে বাধা দেন কালাম। এ বিষয়ে মেয়েটির স্বামী জানান জিহাদ ওরফে জীমের কারনে আজ আমার সাজানো সংসার নষ্ট হচ্ছে। সে আমার সব তছনছ করে দিয়েছে।আমি তার শাস্তি চাই।
এ বিষয়ে অভিযুক্ত জিহাদ ওরফে জীমের সাথে কথা বললে তিনি এ বিষয়ে কোন মন্তব্য না করে বলেন যান নিউজ করে দেন। এ বিষয়ে জানতে কার্পাসডাঙ্গা পল্লী বিদ্যুৎ অফিসের ইনচার্জ ইঞ্জি: শাহাবদ্দীনের সাথে কথা বললে তিনি বিটিসি নিউজকে জানান, আমি এ বিষয়ে কিছু জানিনা। আমাকে কেউ কিছু বলেনি। আমি বিষয়টি শুনে তারপর বলতে পারবো।
এ বিষয়ে মেহেরপুর পল্লী বিদ্যুতের এজিএম নাজিম আহমেদের সাথে কথা বললে তিনি বিটিসি নিউজকে জানান, এ ধরনের যদি কোন ঘটনা ঘটে থাকে আমরা তদন্ত করে দেখবো। তদন্ত করে দোষী প্রমানিত হলে তার বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।
কার্পাসডাঙ্গা এলাকার স্থানীয় অনেকে জানান, মেহেরপুর পল্লী বিদ্যুৎ সুনামের সাথে এলাকায় কাজ করছে। জিহাদ ওরফে জীমের মত লাইনম্যানের বিতর্কিত কর্মকান্ডের কারনে মেহেরপুর পল্লী বিদ্যুতের স্টাফদের প্রতি মানুষের ভ্রান্ত ধারনার সৃষ্টি হতে পারে। তাই তার বিরুদ্ধে তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহন করে তাকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করে মেহেরপুর পল্লী বিদ্যুতের সুনাম অক্ষুন্ন রাখতে মেহেরপুর পল্লী বিদ্যুতের উদ্ধর্তন কর্মকর্তাদের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছে এলাকাবাসী সহ সচেতন মহল।
সংবাদ প্রেরক বিটিসি নিউজ এর দামুড়হুদা (চুয়াডাঙ্গা) প্রতিনিধি মোস্তাফিজ কচি। #

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.