আজ- মঙ্গলবার, ২০শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ৪ঠা আগস্ট, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

শিরোনাম

  করোনাকালে মরুভূমিতে বসিয়ে রাখা হয়েছে অসংখ্য বিমান       সবুজ বাংলাদেশ সুবর্ণচর শাখার ঈদপূর্ণমিলন ও পরিচিত সভা এবং বৃক্ষরোপন কর্মসূচি       তিস্তায় বাঁধ নির্মাণের দাবিতে মানববন্ধন       রাজ্যে লকডাউন’র দিন বদল, নতুন তালিকা প্রকাশ করল নবান্ন       করোনাকালে দেশের রেমিট্যান্স ও রিজার্ভে রেকর্ড       নেপালে আবারও ভূমিধসে ১০ জন’র মৃত্যু       ইংল্যান্ড দল’র ব্যাটিং কোচ’র দায়িত্ব পেলেন ট্রট       শান্তিতে নোবেলজয়ী জন হিউম’র প্রয়াণ       ভ্রমণ পিয়াসীদের পদচারণায় ৫ মাস পরে মুখরিত হয়ে উঠেছে রাজশাহীর চিড়িয়াখানা ও পদ্মাপাড়       নবীগঞ্জে করোনায় মারা গেলেন চিত্তরঞ্জন দাশ       উজিরপুরে মসজিদ কমিটিকে কেন্দ্র করে যুবলীগ সম্পাদকসহ আহত ৫       বাগেরহাটে ইয়াবাসহ দু’বোনকে আটক করেছে গোয়েন্দা পুলিশ       রাজশাহীতে লুকু-কালুর জুয়ার আসরে পুলিশের অভিযান, কালুসহ-১২ জুয়াড়ী আটক       নাগেশ্বরীতে শহীদ সাফাত সড়কের নামফলক উন্মোচন        উজিরপুরে জুয়াড়ী রফিক গণধোলাইয়ের শিকার       আফগানিস্তান কারাগারে বন্দুকধারীদের হামলায় নিহত-২১, আহত-৪৩    

খুমেক হাসপাতালের রক্ত পরিসঞ্চালন বিভাগের অনিয়ম তদন্তে গঠিত কমিটির প্রতিবেদন প্রস্তুত পরিচালক খুলনায় আসলেই প্রতিবেদনের আলোকে ব্যবস্থা

খুলনা ব্যুরো: খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের রক্ত পরিসঞ্চালন বিভাগের অনিয়ম তদন্তের জন্য গঠিত কমিটির প্রতিবেদন দাখিল হয়েছে। কিন্তু হাসপাতালের পরিচালক ডা: এটিএম এম মোর্শেদ ঢাকায় যাওয়ায় প্রতিবেদন সম্পর্কিত কোন তথ্য পাওয়া যায়নি।
গঠিত কমিটির সভাপতি ও হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা: মো: আতিয়ার রহমান সেখ বিটিসি নিউজ এর প্রতিবেদককে বলেন, রক্ত পরিসঞ্চালন বিভাগ সম্পর্কিত তদন্ত প্রতিবেদন প্রস্তুত হয়ে গেছে। ঢাকা থেকে পরিচালক খুলনায় ফিরলেই তার কাছে এটি হস্তান্তর করা হবে। তবে ঢাকায় অবস্থানরত খুমেক হাসপাতালের পরিচালক বলেন, জরুরি তলবের কারণে তিনি গতকাল দুপুরে ঢাকায় চলে গেছেন।
আজ বুধবার (১৫ জানুয়ারী) স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে খুমেক হাসপাতালের জন্য একটি এম্বুলেন্স দেয়া হবে। স্বাস্থ্যমন্ত্রীর হাত থেকে সেটি গ্রহণের জন্যই তিনি ঢাকায় গেছেন। তবে তদন্ত প্রতিবেদন তার দপ্তরে দাখিল হয়েছে বলে তিনি শুনেছেন। আগামীকাল বৃহস্পতিবার খুলনায় ফিরেই শনিবার তিনি প্রতিবেদনের আলোকে ব্যবস্থা নেবেন।
পরিচালক বলেন, রক্ত পরিসঞ্চালন বিভাগসহ হাসপাতালের অন্য যে কোন বিভাগের দুর্নীতি-অনিয়ম রোধে তিনি সোচ্চার। কোন ব্যক্তিই দুর্নীতি করে পার পাবে না বলেও তিনি উল্লেখ করেন।
উল্লেখ্য, খুমেক হাসপাতালের গাইনী বিভাগের এক রোগীর কাছে তিন ব্যাগ রক্ত বিক্রির অভিযোগের পর আউটসোর্সিং কর্মচারী আদনান মাহমুদকে চাকরীচ্যুত ও ল্যাব এ্যাটেনডেন্ট মোসা: রওশান আরার প্রেষণ আদেশ বাতিলের জন্য খুলনার স্বাস্থ্য পরিচালক দপ্তরে পত্র দেয়া হয়।
আউটসোর্সিং কর্মচারী আদনান মাহমুদ হাসপাতালের পরিচালক ডা: এটিএম এম মোর্শেদের নাতী পরিচয় দিয়ে আসছিলেন বলেও জনশ্রুতি রয়েছে। তবে তার চুক্তি বাতিলের জন্য উটসোর্সিং কর্মচারী সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান মাছরাঙা সিকিউরিটি সার্ভিস লি: এর কাছে হাসপাতালের পরিচালক পত্র দেয়ার পর তার চুক্তি বাতিল হয় বলে ওই ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের পরিচালক মো: আরিফুজ্জামান জানান।
এছাড়া রক্ত পরিসঞ্চালন বিভাগের অনিয়ম অনুসন্ধানের জন্য গত ৯ জানুয়ারি তিন সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা: মো: আতিয়ার রহমান সেখকে সভাপতি করে গঠিত কমিটির অন্য দু’সদস্য হলেন, আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা: অঞ্জন কুমার চক্রবর্তী ও প্রশাসনিক কর্মকর্তা মো: বেলাল হোসেন।
দু’ কর্মদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দেয়ার জন্য বলা হলেও রক্ত পরিসঞ্চালন বিভাগে ব্যাপক দুর্নীতি-অনিয়ম পরিলক্ষিত হয় এবং এর সাথে আরও অনেক কর্মকর্তা-কর্মকর্তা জড়িত বলে অধিক তদন্তের জন্য সময় বাড়ানো হয়।
যে কারণে পাঁচ কর্মদিবসের মধ্যে গতকাল মঙ্গলবার (১৪ জানুয়ারী) প্রতিবেদন প্রস্তুত করা হয়।

সংবাদ প্রেরক বিটিসি নিউজ এর খুলনা ব্যুরো প্রধান এইচ এম আলাউদ্দিন এবং মাশরুর মুর্শেদ। #

Comments are closed.